Posts

Bengali

Image
Bengali is a Nagari-derived script that appeared in eastern South Asia around the 11th century CE. It is still currently used in Bangladesh, as well as the state of West Bengal in India (hence the script's name) on the eastern part of India. The old Bengali script (11th century CE) is also the parent to many other scripts of eastern India, such as a Oriya, Manipuri, and Maithili. The Bengali script is used to write languages in eastern India such as Bengali, Assamese, and Manipuri.

Once again, like other South Asian writing systems, vowels following a consonant other than the default /a/ is written with extra strokes, as in the following example:


Quick FactsTypeSyllabic AlphabeticGenealogyBrahmiLocationSouth AsiaTime11th century CE to PresentDirectionLeft to right

স্ভালবার Svalbard

Image
স্ভালবার (Svalbard) নামে নরওয়ের একটি দ্বীপপুঞ্জ আছে। যা নরওয়ের মূল ভূখণ্ড থেকে প্রায় ১ হাজার কিলোমিটার দূরত্বে এবং উত্তর মেরুর সন্নিকটে উত্তর মহাসাগরের মাঝে অবস্থিত। এখানে যেমন মানুষের বসবাস আছে, অনুরূপ আছে শ্বেত ভাল্লুকের বসবাস। দ্বীপটি সারা বছর বরফ আচ্ছাদিত থাকে, শীতকালে বেশি আর গ্রীষ্মকালে তুলনা মূলক কম। শীতকালে ২৪ ঘন্টা এখানে রাত থাকে আর গ্রীষ্মকালে ২৪ ঘন্টা দিন থাকে। নরওয়ের আইন অনুযায়ী স্থানীয় সরকার দ্বারা দ্বীপটি পরিচালিত হয়। এখানে কিছু বিশেষ আইন বলবৎ আছে যা আপনার কাছে কিছুটা অদ্ভুত মনে হবে।

১. বিড়াল নিষিদ্ধ
এই দ্বীপে যত্রতত্র বিশাল শ্বেত ভাল্লুকের বিচরণ থাকলেও এই দ্বীপে বিড়াল নিষিদ্ধ। বিরল প্রজাতির মেরু অঞ্চলের পাখীদের রক্ষা করার জন্য ১৯৯২ সালে আইন করে এই দ্বীপে বিড়াল নিষিদ্ধ করা হয়। তবে এই আইন প্রণয়ন এবং বাস্তবায়ন করার পূর্বে এই দ্বীপে বিড়াল ছিল, বর্তমানে “কেশা” নামে একটি বিড়াল আছে যেটিকে শিয়াল হিসেবে নিবন্ধিত করা হয়েছে।

২. বন্দুক বাধ্যতামূলক
নরওয়ের মূল ভূখন্ডে বন্দুক ধারী কাউকে দেখা যাওয়ার কথা কল্পনাতীত, এমন কি আইন রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদেরকেও সাধারণত অ…

কথার কথা - ১

Image
আমার জীবনে আবর্তিত হওয়া বিভিন্ন অভিজ্ঞতার আলোকে “কথার কথা” নামে বিভিন্ন কথা নিয়ে একটি ধারাবাহিক কথামালা রচনার উদ্যোগ নিয়েছি। নিম্নে তারই একটি তুলনামূলক নমুনা উল্লেখ করা হলো।

কথা - ১ 
“তুমি আইজ যত বড়-ই হও, যতই দেশ বিদেশ ঘুরে বেড়াও, যত টাকার মালিক-ই হও, ভুলে যাইয়ো না, এক কালে গ্রামে থাকতে, আমাদের ছাগল ভেড়া চড়াইচেও, আর শহরে থাকতে আমাদের বাজারের ব্যাগ টানিচেও।” - এ কথা তাচ্ছিল্যের, এ কথা অনাত্মীয়তার।

কথা - ২ 
“তুমি আজ যত বড়-ই হও, পৃথিবীর যে প্রান্তেই থাকো না কেন, একটা কথা মনে রেখো, আমাদের দোয়া এবং শুভ কামনা সব সময় তোমার সঙ্গে আছে, তুমি সব সময় সুন্দর এবং নিরাপদে থাকো এটাই আমাদের কামনা।” - এ কথা আন্তরিকতার, এ কথা আত্মীয়তার।

পুনঃশ্চ, কথাগুলোর বক্তা কে ছিলো তা এখানে আলোচ্য বিষয নয়, কথাগুলোর মূল ভাবার্থ এখানে মূখ্য আলোচ্য বিষয়।

আন্তঃডাকাতি

Image
আন্তঃজালে নাটক বা চলচ্চিত্র দেখার একটি আন্তঃনাট্যশালা আছে, সেখানে যে কেউ সদস্য হতে পারে, এবং মাসিক অর্থ প্রদানের ভিত্তিতে আত্মবিনোদিত হতে পারে অর্থাৎ, নাটক বা চলচ্চিত্র উপভোগ করতে পারে। গতপরশু রাতে গতানুগতিক একটি চলচ্চিত্র দেখছিলাম। হঠাৎ খাতাযন্ত্রের পর্দায় পরপর দুটি বার্তা প্রাপ্তির প্রজ্ঞাপন ভেসে উঠলো। বার্তা দুটি পড়ার পর বুঝতে পারলাম কেউ একজন অবৈধ অনুপ্রবেশ করে আমার আন্তঃনাট্যশালয় যোগ করা আমার আন্তঃবার্তা ঠিকানা এবং মুঠোফোনের সংখ্যা পরিবর্তন করেছেন। সোজা বাংলায় বলতে গেলে কেউ এক জন উক্ত আন্তঃনাট্যশালায় আমার প্রবেশাধিকার ডাকাতি করে ছিনিয়ে নিয়েছেন।  দূরদর্শনের পর্দায় আমার আন্তঃবার্তা ঠিকানার স্থলে অজানা একটি ঠিকানা দেখতে পেয়ে হতচকিত হলাম। এরপর আমি কোলযন্ত্র দিয়ে উক্ত আন্তঃনাট্যশালয় আমার তথ্য দিয়ে প্রবেশ করার চেষ্টা করতেই, পর্দায় ভেসে উঠলো "আপনি ভুল তথ্য প্রবেশ করিয়েছেন", নিরুপায় হয়ে আমি যথাযথ কতৃপক্ষের সঙ্গে বার্তা পাঠিয়ে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হলাম। সর্ব শেষ চেষ্টা হিসেবে আমি তাদের সাথে কথা বলার সিদ্ধান্ত নিলাম এবং তাদের যোগাযোগের সংখ্যায় দূরালাপ…

দুপুরের ঘটনা

Image
আজ দুপুরে রাজধানীতে, আমি একটা বিপণন বিতানের মধ্যবর্তী পথ ধরে আমার গন্তব্যের দিকে যাচ্ছিলাম, দূর থেকে স্বচ্ছ কাঁচের দরজা দিয়ে দেখতে পেলাম এক লোককে জন নিরাপত্তা বাহিনীর কর্মীরা জোড় করে গাড়িতে তুলছে, পাশে কিছু লোকজন ছিলো যাঁরা ঐ স্থান দ্রুত ত্যাগ করে দূরে সরে যাচ্ছে।
আমি আর একটু নিকটে অগ্রসর হতেই, অর্থাৎ বিপণন বিতানের সদর দরজা দিয়ে বের হতেই ঘটনা সমূহের কারণ আমার কাছে পরিস্কার হতে লাগলো।
নিরাপত্তা বাহিনীর কর্মীরা যে ব্যক্তিকে জোড় করে গাড়িতে তুলেছে, তিনি গাড়ীর ভিতর থেকেই খেজুরে ভাষায়, স্বর্গ দেবের স্বর্গীয় পুস্তকের প্রথম বাক্য চিৎকারের সহিত বারংবার উচ্চারণ করছে।
নিরাপত্তা বাহিনীর কর্মীরা গাড়ীর ভিতরে আটক ব্যক্তিকে উক্ত বাক্য সমূহ উচ্চারণ করতে নিষেধ করে যাচ্ছেন, কিন্তু ভিতরে আটক ব্যক্তি তাতে কর্ণপাত করছেন না।
আর দশ জন পথচারীর ন্যায় আমিও সেদিকে দৃষ্টিপাত না করে আমার গন্তব্যের দিকে অগ্রসর হতে লাগলাম।

ফোনালাপ

Image
আমার জীবনের প্রথম ফোনটা ছিলো নকিয়া ১৬০০ আর এটি ছিলো ২০০৫ সালে। সে সময় ফোনটি ব্যবহার করে ফোন কল এবং ক্ষুদ্র বার্তা পাঠানোর পাশাপাশি গেম খেলা যেতো। সে সময় ফোনটি আমার প্রিয় ছিলো। এরপর ফোনটিহারানোর পর নতুন একটি নকিয়া ফোন কিনেছিলাম যেটাতে ক্যামেরা ছিলো, ছবি তোলা এবং ভিডিও করা যেতো, আমার কাছে সবচেয়ে বড় বিষয় ছিলো যে এটি দিয়ে ইন্টারনেট ব্যবহার করা যেতো, কম্পিউটারের সাথে ফোনটিকে যুক্ত করলেই ইন্টারনেট মোডেম হিসেবে কাজ করতো। যাই হোক দেশ ত্যাগের পর ২০১০ সালে ছোট একটা স্যামসং ফোন কিনে ছিলাম ক্ষণস্থায়ী ব্যবহার করার জন্য। তবে ২০১১ সালে আইফোন কেনার পর স্যামসং ফোন সেট তো দূরের কথা নম্বরটিও ব্যবহার করিনি। আইফোন ফোর এস একটানা ছয় বছর ব্যবহার করেছি, বেশ ভালো সেবা দিয়েছিলো ফোনটি। শেষের দিকে ২০১৭ সালে মনে হলো ফোনটি বৃদ্ধ হয়ে যাচ্ছে, অনেকটা ধীর গতিতে কাজ করছে, কোন একটা বাটনে ক্লিক করলে সময় নিত প্রায় পাঁচ থেকে দশ সেকেন্ড। পরিশেষে বিরক্ত হয়ে নতুন ফোন কেনার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করি। সে সময় আইফোনের সর্ব শেষ সংস্করণটি ছিলো আইফোন সেভেন প্লাস। বড় পর্দার শতাধিক বৈশিষ্ট্য যুক্ত ফোন, তথ্য ধারণ ক্ষমতা ১২৮ …

পাওয়া না পাওয়া

কোন কোন বিষয় আছে যেগুলো একবার পেলে বার বার পেতে ইচ্ছে জাগে মনে। যেমন ধরো, কাউকে যদি চকলেট, আইসক্রিম দাও, এবং এগুলো যদি সে পছন্দ করে, তাহলে সে বার বার সেগুলো পেতে চাইবে। করল্লা বা উস্তা পুষ্টিকর হওয়া স্বত্বেও স্বাদে তেতো হওয়ার কারণে অনেকেরই অপছন্দের। আবার লবণ তেতো হওয়া স্বত্বেও লবণহীন তরকারী বেস্বাদ বলে কেউ খেতে চায় না।
কোন বস্তু বারবার পেতে চাওয়ার বিষয়টি নির্ভর করে ব্যক্তির চাহিদা, পছন্দ, এবং বস্তুর গুণগত মানের উপর।
আবার, কোন কোন বিষয় আছে যেগুলো না পাওয়ার আগ মূহুর্ত পর্যন্ত মনে কৌতুহল বা ভিন্ন অনুভূতি বিরাজ করে। পাওয়ার পর কাংঙ্খিত বিষয়ে অনুভূতি বদলে যায়। যেমন ধরো, কাউকে দূর থেকে দেখলে তোমার ভয় লাগে, কিন্তু তার সাথে ঘনিষ্টভাবে মেশার পর যখন বুঝতে পারবে সে আসলে অনেক মজার মানুষ, তখন তোমার তার প্রতি অনুভূতি গুলো বদলে যাবে।
অর্থাৎ, এক সময় যাকে ভয় পেতে, তাকে ভালো লাগতে শুরু করবে। আবার ধরো, দূর থেকে কারোর সম্পর্কে তুমি অনেক গুণগান শুনেছো। সকলের মুখে মুখে প্রসংশা শুনতে শুনতে রীতিমত ভক্ত বনে গেছো। এবং তার সাথে দেখা হওয়া মাত্রই সেলফি তুলবে বলে মনে মনে চিন্তা করেছো। কিন্তু কাঙ্…